ধূসর পাণ্ডুলিপি

শিরোনাম
ধূসর পাণ্ডুলিপি
কবি
জীবনানন্দ দাশ
অঙ্কনশিল্পী
অণিলকৃষ্ণ ভট্টাচার্য
দেশ
ব্রিটিশ ভারত, বেঙ্গল প্রেসিডেন্সি
ভাষা
বাংলা
ধরণ
আধুনিক বাংলা কবিতা
প্রকাশকাল
ডিসেম্বর ১৯৩৬ (অগ্রহায়ণ ১৩৪৩ বঙ্গাব্দ)
মিডিয়া
মুদ্রিত গ্রন্থ
কবিতা
২০ টি (প্রথম প্রকাশ)
পাতা
১০+১০১ (প্রথম প্রকাশ)
প্রকাশক
জীবনানন্দ দাশ
মূল্য
দুই টাকা
গ্রন্থস্বত্ব
ভারতীয় কপিরাইট আইনে পাবলিক ডোমেইন

ভূমিকা

“আমার প্রথম কবিতার বই প্রকাশিত হয়েছিল—১৩৩৪ সালে। কিন্তু সে বইখানা অনেকদিন আমার নিজের চোখের আড়ালেও হারিয়ে গেছে। আমার মনে হয় সে তার প্রাপ্য মূল্যই পেয়েছে।

১৩৩৬ সালে আর একখানা বই বার করবার আকাঙ্ক্ষা হয়েছিল। কিন্তু নিজ মনে কবিতা লিখে এবং কয়েকটি মাসিক পত্রিকায় প্রকাশিত ক’রে সে ইচ্ছাকে আমি শিশুর মত ঘুম পাড়িয়ে রেখেছিলাম। শিশুকে অসময়ে এবং বারবার ঘুম পাড়িয়ে রাখতে জননীন যে রকম কষ্ট হয়, সেইরকম কেমন একটা উদ্বেগ—খুব স্পষ্টও নয়, খুব নিরুত্তেজও নয়—এই ক’বছর ধ’রে বোধ ক’রে এসেছি আমি।

আজ ন’বছর পরে আমার দ্বিতীয় কবিতার বই বার হ’ল। এর নাম “ধূসর পান্ডুলিপি” এর পরিচয় দিচ্ছে। এই বইয়ের সব কবিতাই ১৩৩২ থেকে ১৩৩৬ সালের মধ্যে রচিত হয়েছে। ১৩৩২ সালে লেখা কবিতা, ১৩৩৬ সালে লেখা কবিতা—প্রায় এগারো বছর আগের প্রায় সাত বছর আগের রচনা সব আজ ১৩৪৩ সালে এই বইয়ের ভিতর ধরা দিল। আজ যে-সব মাসিক পত্রিকা আর নেই—প্রগতি, ধুপছায়া, কল্লোল—এই বইয়ের প্রায় সমস্ত কবিতাই সেইসব মাসিকে প্রকাশিত হয়েছিল একদিন।

সেই সময়কার অনেক অপ্রকাশিত কবিতাও আমার কাছে রয়েছে—যদিও ধূসর পাণ্ডুলিপির অনেক কবিতার চেয়েই তাদের দাবি একটুও কম নয়—তবুও সম্প্রতি আমার কাছে তারা ধূসরতর হয়ে বেঁচে রইল।”

আশ্বিন ১৩৪৩,

জীবনানন্দ দাশ

উৎসর্গ

বুদ্ধদেব বসুকে